Home / বাংলা টিপস / ৩০২ কেজি ওজনের সেই মাখন মিয়া আর নেই

৩০২ কেজি ওজনের সেই মাখন মিয়া আর নেই

অস্বাভাবিক ওজন নিয়ে জীবনযু’দ্ধে হেরে অবশেষে পৃথিবী থেকে বিদায় নিলেন ৩০২ কেজি ওজনের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মাখন মিয়া। মৃ’ত্যুকালে তার ব’য়স হয়েছিল (৪০) বছর।

সোমবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) রাত ১০টার দিকে ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে মৃ’ত্যুবরণ করেন। মাখন ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর শহরের দক্ষিণ মৌড়াইলের মি’লন মিয়ার ছেলে।

পারিবারিক সূত্র জানায়, মাখন মিয়ার ওজন প্রথমে স্বাভাবিক থাকলেও পরে ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে। মৃ’ত্যুকালে তার ওজন ছিল ৩০২ কেজি। অস্বাভাবিক এই ওজন নিয়ে মানবেতর দিন কাটিয়ে ছিল মাখন। অবশেষে ওজনের কারণে জীবন-যু’দ্ধে হেরে মৃ’ত্যুর কোলে ঢলে পড়েন তিনি।

মাখনের পিতা মি’লন মিয়া জানান, গত কয়েকদিন যাবত মাখন শ্বাসক’ষ্ট ও হৃদরো’গ ভুগছিলেন। গত ২০ বছর ব’য়স পর্যন্ত স্বাভাবিকই ছিল মাখন। তারপর হঠাৎ তার শা’রীরিক গঠন বাড়তে থাকে। সে সাথে তার শ’রীরের ওজনও অস্বাভাবিক বাড়তে থাকে। শেষ পর্যন্ত তার ওজন ৩০২ কেজিতে গিয়ে দাঁড়ায়। ছেলেকে সুস্থ করার জন্যে চিকিৎসাও করেছেন একাধিকবার, কিন্তু অস্বাভাবিক ওজনের কারণে ব্যাহত হচ্ছিল চিকিৎসা। তার চিকিৎসা ব্যয় বহন করতে গিয়ে এখন নি:স্ব তার পরিবার। দুই স’ন্তান ও স্ত্রী নিয়ে আর্থিক ক’ষ্টে বেঁচে থাকাই ছিল ক’ষ্ট কর।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগ কর্তব্যরত চিকিৎসক আব্দুল্লাহ আল মামুন মৃ’ত্যু নিশ্চিত করে জানান, সোমবার রাতে মাখন গু’রুতর অ’সুস্থ হয়ে পড়লে হাসপাতালে নিয়ে আসেন পরিবারের সদস্যরা। তার ওজনের কারণে হাসপাতালের ভে’তরে জরুরী বিভাগে ঢুকানো সম্ভব হয়নি। হাসপাতালের গেইটেই তাকে চিকিৎসা দিতে হয়েছে।

তিনি বলেন, মাখনের শ্বাসক’ষ্ট সমস্যা ছিল। তার বুকে ব্য’থা ছিল। হৃদযন্ত্র ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তার মৃ’ত্যু হয়েছে।

অস্বাভাবিক ওজন নিয়ে জীবনযু’দ্ধে হেরে অবশেষে পৃথিবী থেকে বিদায় নিলেন ৩০২ কেজি ওজনের ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মাখন মিয়া। মৃ’ত্যুকালে তার ব’য়স হয়েছিল (৪০) বছর।

সোমবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) রাত ১০টার দিকে ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে মৃ’ত্যুবরণ করেন। মাখন ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর শহরের দক্ষিণ মৌড়াইলের মি’লন মিয়ার ছেলে।

পারিবারিক সূত্র জানায়, মাখন মিয়ার ওজন প্রথমে স্বাভাবিক থাকলেও পরে ধীরে ধীরে বাড়তে থাকে। মৃ’ত্যুকালে তার ওজন ছিল ৩০২ কেজি। অস্বাভাবিক এই ওজন নিয়ে মানবেতর দিন কাটিয়ে ছিল মাখন। অবশেষে ওজনের কারণে জীবন-যু’দ্ধে হেরে মৃ’ত্যুর কোলে ঢলে পড়েন তিনি।

মাখনের পিতা মি’লন মিয়া জানান, গত কয়েকদিন যাবত মাখন শ্বাসক’ষ্ট ও হৃদরো’গ ভুগছিলেন। গত ২০ বছর ব’য়স পর্যন্ত স্বাভাবিকই ছিল মাখন। তারপর হঠাৎ তার শা’রীরিক গঠন বাড়তে থাকে। সে সাথে তার শ’রীরের ওজনও অস্বাভাবিক বাড়তে থাকে। শেষ পর্যন্ত তার ওজন ৩০২ কেজিতে গিয়ে দাঁড়ায়। ছেলেকে সুস্থ করার জন্যে চিকিৎসাও করেছেন একাধিকবার, কিন্তু অস্বাভাবিক ওজনের কারণে ব্যাহত হচ্ছিল চিকিৎসা। তার চিকিৎসা ব্যয় বহন করতে গিয়ে এখন নি:স্ব তার পরিবার। দুই স’ন্তান ও স্ত্রী নিয়ে আর্থিক ক’ষ্টে বেঁচে থাকাই ছিল ক’ষ্ট কর।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগ কর্তব্যরত চিকিৎসক আব্দুল্লাহ আল মামুন মৃ’ত্যু নিশ্চিত করে জানান, সোমবার রাতে মাখন গু’রুতর অ’সুস্থ হয়ে পড়লে হাসপাতালে নিয়ে আসেন পরিবারের সদস্যরা। তার ওজনের কারণে হাসপাতালের ভে’তরে জরুরী বিভাগে ঢুকানো সম্ভব হয়নি। হাসপাতালের গেইটেই তাকে চিকিৎসা দিতে হয়েছে।

Check Also

এলার্জি কি, কেন হয়? ও দূর করার উপায়

এলার্জি একটি সর্বজনীন বহুল প্রচলিত শব্দ। বাংলাদেশের লাখ লাখ মানুষের কাছে এক অসহনীয় ব্যাধি। এলার্জিতে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *